Monday, 1 July 2013

ধারী দেবীর প্রকোপ (Dhara Devi)


সম্প্রতি উত্তারাখান্ডে ভীষণ  বৃষ্টি ও বন্যা হয়েছে এবং তার  ফলে মানুষের অনেক ক্ষতি  হয়েছে ।আমরা সংবাদপত্র ও টিভির  মাধ্যমে এই সব খবর পেয়েছি ।বাপু  তার কালকের বক্তৃতার সময়  এই দুর্যোগের উল্লেখ করেছেন,একটি নিবন্ধে এই সম্পর্কিত প্রত্যক্ষ কাগজে প্রকাশিত হোয়েছে,তারই বাংলা অনুবাদ এইটি ।




জনপ্রিয় বিশ্বাস যে ধারী দেবী চারধামের তীর্থযাত্রীদের রক্ষা করেণ,তাই শেষ দুই বছর ধরে উত্তারাখান্ডে
শ্রীনগর অঞ্চলের নদী অলকানন্দার তীরে অবস্থিত ধারী দেবীর মন্দীরকে ধ্বংস না করার অনুরোধ ক্রমাগত সরকারকে করা হয়েছে ,কারণ স্থানীয় বাসিন্দারা এবং ধর্মীয় সংস্থ্যাদের বিশ্বাস যে ধারী দেবী নদীর প্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করেন ।সরকার কোনো কথা না মেনে ১৬ই জুন সন্ধ্যা ৬ ঘটিকায় মন্দির ধ্বংশ করে এবং ধারী দেবীর প্রতিমা সরিয়ে দায়ে।

ঠিক এই সময় কেদারনাথে ভীষন বৃষ্টি শুরু হয় ,দুই ঘন্টা ধরে জল ঝর হতে থাকে,হাজার হাজার তীথ্যযাত্রীরা আটকে যান ।ভারী বৃষ্টি ও ভূমিধসে চারিদিকে হাহাকার পরে যায় ।লোকেদের নিরাপদ স্হানে নিয়ে যাবা খুব কঠীন হয়ে পরে।



মিডিয়া এই দুর্যোগের  কারণ হিসাবে সরকারকেই দায়ী বলে মানেন ,কিন্তূ স্থানীয় বাসিন্দারা ধারী দেবীর মন্দির নষ্ট  হয়ে যাবার জন্যই বিপর্জয় এসেছে বলে মনে করেন।



এই মন্দির ৮০০ বছর পুরনো ,এটি একটি প্রাচীন সিদ্ধ্যাপীঠ,এবং ধারী দেবী মা কালীর একটি প্রতিরূপ তার মূর্তী ভয়াভহ মনে হতে পারে কিন্তূ তিনি আমাদের সকলের মা আমাদের রক্ষ্যা করার জন্য তিনি এই রূপ ধারণ করেছেন ।১৮৮২সালে এক উন্মাদ রাজা মন্দির ধংস করার চেষ্টা করেন এবং একই ভাবে প্রকিতিক দুর্যোগ হয় ।



উন্নয়নমূলক প্রকল্পের নামে প্রবিত্র মন্দির ভেঙে দেওয়াকে কোনো মতেই মেনে নেওয়া যায় না ।পরিবেশ কল্যানের নামে কেন্দ্রীয় সরকার এইরখম নানা অনুমোদিত করেছেন যাতে না পরিবেশ বা স্থানীয় বাসিন্দারা উপকৃত হয়েছে।অলকানন্দা নদীর ওপর এইরমই একটি বাধ তৈরী করার জন্যই দেবীর মন্দীর ভাঙা হয় এবং তার মূল্য সাধারণ মানুষকে দিতে হচ্ছে ।সরকারের  মতে গঙ্গার ও অন্যান্য নদীর উপর বাধ তৈরির পেছনে বিদ্যূত তৈরী বিশেষ কারণ কিন্তূ তাতে জলে দুষণ দিনে দিনে বেড়ে চলেছে ,তবুও সরকার তা স্বীকার করতে রাজি নয় ।সরকারের এই আচরণ সতিই মর্মান্তিক।ইন্টারনেট এবং সামাজিক নেটওয়ার্কিং সাইটগুলিতে সাধারণ মানুষ একটি প্লাটফর্ম পেয়েছেন যেখানে তারা সরকারের এই অমানবিক আচরণ সম্পর্কে নিজেদের বক্তব্য ভাগ করে নিতে পারেন ।আর যাতে এই ভয়াভহ দুর্যোগ না  ঘটে সরকারের উচিত সংবেদনশীলতা ও বিবেচনা দিয়ে দেশের লোকের খেয়াল রাখা ,যাতে তাদের উপর মানুষের বিশ্বাস ও শ্রদ্ধা বজায় থাকে ।

No comments:

Post a comment